লক্ষ্মীপুরে শিশু আয়ানের মৃত্যুরহস্য নিয়ে ধুম্রজাল

সবুজ জমিন প্রতিনিধি ঃ লক্ষ্মীপুরে শিশু আয়ান হত্যা নিয়ে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ উঠেছে। এই মৃত্যুরহস্য নিয়ে ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে সর্ব মহলে। রবিবার দিবাগত রাতে (২৭ সেপ্টেম্বর) সদর উপজেলার লাহারকান্দি ইউনিয়নের পূর্ব চাঁদখালী গ্রামের হাফেজ চেয়ারম্যানের বাড়িতে এই হত্যা কান্ডের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মা সাবিনা ইয়াসমিনকে (২৫) আটক করেছে পুলিশ। আয়ান সৌদী প্রবাসী আজিমুর রহমানের ছেলে। তাদের স্থায়ী বাড়ি সদর উপজেলার তেওয়ারীগঞ্জ ইউনিয়নের হোসেনপুর গ্রামে।
মা সাবিনা ইয়াসমিন সাংবাদিকদের জানান, আমি নয়, আমার চার বছরের শিশু সন্তান আয়ানকে হত্যা করেছে আমার শুশুর হুমায়ুন কবির। আমার শিশু সন্তান হত্যার অভিযোগে উল্টো আমাকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে শুশুর গং। আমি প্রশাসনের কাছে উচ্চ প্রযুক্তির মাধ্যমে আমার শিশু সন্তান আয়ান হত্যার প্রকৃত রহস্য উম্মোচন করে হত্যাকারিদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।
সাবিনা আরো বলেন, গতকাল রাতে ৮টার দিকে আয়ানকে আমি ভাত খাওয়ানোর পরে শুশুর আয়ানকে তার কাছে রেখে দিয়েছে। ঘন্টা খানেক পর শুশুর আমাকে বলে তোমার ছেলেকে নিয়ে যাও। ছেলেকে ঘুমান্ত অবস্থায় আমার কাধেঁ নিয়ে আমার রুমে বিছানায় শোয়ালে দেখতে পাই ছেলে কোন নড় ছড় করছে না। যখন দেখি ছেলে হাত পা নড়াচড়া করছেনা চোখ ও মেলছেনা তখনোই আমি চিৎকার দিলে আমার শুশুর ও তার ছেলে সবাই এসে আমাকে মারধর করে আমার হাতের ভিতরে বটি জোর করে দিয়ে তারা আমার হাতের উপর চেপে ধরে আয়ানকে জবাই করে। সাংবাদিকদের এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন আয়ানের মা সাবিনা ইয়াছমিন।

সাবিনা ইয়াসমিন ও তাঁর স্বজন সুত্রে জানা যায়, সাবিনার বিয়ে পর তার স্বামী বিদেশ যাওয়ার পর থেকে শুশুর ও তাদের লোকজন সাবিনাকে একাধিক বার মারধর করে নির্যাতন চালায়। শেষ পর্যন্ত ২ লক্ষ টাকা দিয়ে এই সংসার থেকে বিদায় করে দিতে চূয়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয় শুশুর ইঞ্জিনিয়ার হুমায়ুন কবির ও তার প্রবাসী ছেলে আজিমুর রহমান ।
এসব বিষয় নিয়ে শুশুর হুমায়ুন কবির ও তার ছেলে বউ সাবিনার সাথে বাকবিতন্ড হয়। তারই ধারাবাহিকতায় এই হত্যা কান্ডের ঘটনা ঘটে।

অপর দিকে সাবিনার শুশুর ইঞ্জিনিয়ার হুমায়ুন কবির সবুজ জমিনকে বলেন, তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সঠিক নয়। বরং সাবিনাকে ছেলের বউ করে নিয়ে আসার পর থেকে সে আমার উপর বিভিন্ন সময়ে অত্যাচার নির্যাতন ও অসাধাআচারণ করে আসছে। এসব বিষয় নিয়ে তার সাথে গতকালকে আমাদের সাথে বাকবিতন্ড হয়। আয়ানকে তার বউ সাবিনাই মেরেছে বলে দাবি করছেন শুশুর হুমায়ুন কবির।

সাবিনাকে আটক ও শিশু হত্যার বিষয়টি সত্যতা নিশ্চিত করেন লক্ষ্মীপুর মডেল থানার ওসি জসিম উদ্দিন। তিনি বলেন, পারিবারিক কলহের জের ধরে এই হত্য কান্ডের ঘটনা ঘটছে। লাশের ময়না তদন্তের রিপোর্ট ও তদন্ত করে প্রকৃত রহস্য উম্মোচণ করা হবে।