সাবেক এমপি খায়ের ভূঁইয়া সন্ত্রাসের রাজত্ব করেছে : কবির পাটোওয়ারী

জমিন প্রতিবেদক: লক্ষ্মীপুর ০২ আসনের সবেক এমপি আবুল খায়ের ভূঁইয়া অস্ত্র দিয়ে ২নং দক্ষিণ হামছাদী ইউনিয়ন সহ তাঁর নির্বাচনী এলাকা সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছিল। আজ থেকে ১২ বছর পূর্বে বর্তমান সরকার আসার আগে এ দক্ষিণ হামছাদী ইউনিয়নের খায়ের ভূঁইয়ার অনুসারি বিএনপির সন্ত্রাসীদের অস্ত্রের জনজনানীতে মা বোনেরা নিরাপদে বসবাস করতে পারেননি। বিএনপির এসব সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের জন্য লক্ষ্মীপুরকে কলকিèত করে সারা বাংলাদেশে মধ্যে লক্ষ্মীপুর কে ছোট করা হতো। বর্তমান সরকার ক্ষমতা আসার পর কোন ডিসি এসপি কে লক্ষ্মীপুরে বদলী করা হলে উনার লক্ষ্মীপুরে আসতে চাইতো না। উনারা মনে করতো লক্ষ্মীপুর সন্ত্রাসের আস্তানা।

শুক্রবার ২৮ মে বিকেলে লক্ষ্মীপুর সদর থানা অন্তর্ভুক্ত ২নং দক্ষিণ হামছাদী ইউনিয়নে ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের  মতবিনিময় সভা প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন সদর থানা আওয়ামীলীগের আহ্বায়ক হুমায়ুন কবির পাটোয়ারী।

এসময় তিনি আরো বলেন, আমাদের জননেত্রী শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচনের সময় জনগনকে ওয়াদা দিয়েছিলেন। তিনি প্রধানমন্ত্রী হলে বাংলাদেশ হবে সন্ত্রাস মূক্ত ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ। ২০০৮ সালে জনগনের বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করেন। জননেত্রী শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হয়ে তাঁর দুরদর্শিতা ও মেধা দিয়ে সন্ত্রাস ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ উপহার দেন। কয়েক লক্ষ ভূমিহীন পরিবারকে পাকা ঘর নির্মাণ করে দিন।
লক্ষ লক্ষ নিরিহ মানুষকে বিধবা বাতা, বয়স্ক ভাতা , জেলে ভাতা, নাপিত ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা দিয়ে তাদের স্বাভাবিক ভাবে চলার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন।

পরিশেষে বলবো আগামী  জুলায়   মাসে এই আসনে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই এলাকার অসুম্পুন্ন উন্নয়ন কাজ কে সম্পুন্ন করতে উক্ত উপ-নির্বাচনে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নুর উদ্দিন চোধুরী নয়ন সাহেবকে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে এমপি হিসেবে নির্বাচিত করবেন।

এসময় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মীর শাহ্ আলম সভাপতিত্বে ,
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমিন মাস্টার,থানা আওয়ামী লীগের সদস্য সৈয়দ আবুল কাশেম, ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান কামাল ভূঁইয়া, ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান নজির আহমেদ পাটোয়ারী , থানা আওয়ামী লীগের সদস্য সৌরভ হোসেন বিনু, হানিফ আহমেদ প্রমূখ।

নুর আলম মোহনের পরিচালনা আরো উপস্থিত ছিলেন নাজমুল করিম টিপু, রিয়াজুল হাছান টিটু, নিজাম উদ্দিন রনি,রবিন ভূঁইয়া,বিপুল ভূঁইয়া, সহ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সহ নেতৃবৃন্দ।

৫নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগকে গতিশীল করতে মোঃবাবুল খন্দকারকে সভাপতি,নুরুল আমিনকে সহ সভাপতি,মোঃশাহিন পাটোয়ারীকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি ঘোষণা করা হয়।