এই সাপ্তহ ব্যাংক খোলা মাত্র দুই দিন

 আর.কে, বিশেষ প্রতিনিধি: ঈদকে সামনে রেখেই ব্যাংক খোলা থাকছে মাত্র দুই দিন। অর্থাৎ, আগামী ৭ দিনের মধ্যে ৫ দিনই ব্যাংক বন্ধ থাকবে।

বৃহস্পতিবার (৬ মে) লক্ষ্মীপুর এলাকায় বেশ কয়েকটি ব্যাংক ঘুরে দেখা যায় উপছে পড়া মানুষের ভীড়।

ব্যাংক কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ঈদকে কেন্দ্র করে গ্রাহকের উপস্থিতি বেশি ছিল। গ্রাহকের বেশিরভাগই নগদ টাকা উত্তোলনের জন্য এদিন ব্যাংকে এসেছেন।

বৃহস্পতিবার ব্যাংক খোলার পর পরই শাখাগুলোতে ভিড় করেন গ্রাহকরা। বেশিরভাগ শাখায় গ্রাহকের লম্বা লাইন দেখা গেছে। একই অবস্থা তৈরি হয়েছে এটিএম বুথগুলোতেও।

সোনালী ব্যাংকের লক্ষ্মীপুর শাখার আমিনা জানান,  ঈদের বাকি এখনও সাত দিন। কিন্তু ব্যাংক খোলা থাকবে মাত্র দুই দিন। এ কারণে ব্যাংকে টাকা তুলতে এসেছেন তিনি। সেই সকাল ১০টা থেকে ১পর্যন্ত দাঁড়িয়ে আছি। তার মতো অন্যরাও আজ ভিড় করেছেন। হয়ততো ব্যাংক থেকে টাকা তুলে  কেনাকাটা শেষ করতে চাচ্ছেন অনেকে। এজন্যই  সবাই ব্যাংকমুখী হয়েছেন।

এদিকে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী, ঈদুল ফিতরের আগে আর  মাত্র দুই দিন ব্যাংক খোলা। আগামী রবি ও মঙ্গলবার ব্যাংকে লেনদেন করা যাবে। ১৪ মে যদি ঈদ হয়, তাহলে বুধবার (১৩ মে) কেবল পোশাক শিল্প ও রফতানি সংশ্লিষ্ট লেনদেন হয়— এমন সব ব্যাংক শাখা খোলা রাখার কথা বলা হয়েছে।

আগামীকাল শুক্রবার (৭ মে ) থেকে ১৩মে পর্যন্ত ৭ দিনের মধ্যে রবিবার (৯ মে) ব্যাংক খোলা। পরদিন সোমবার (১০ মে) পবিত্র শবে কদরের ছুটি। এরপর ঈদের আগে মঙ্গলবার (১১ মে) ব্যাংক খোলা থাকবে। এছাড়া বাকি সাত দিন ব্যাংক বন্ধ। তবে ঈদের আগে তৈরি পোশাকশিল্পের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা পরিশোধের জন্য এবং রফতানি বাণিজ্য অব্যাহত রাখতে ঢাকা মহানগরী, আশুলিয়া, টঙ্গী, গাজীপুর, সাভার, ভালুকা, নারায়ণগঞ্জ ও চট্টগ্রামে অবস্থিত ব্যাংক শাখা ১০ মে এবং  ১৪ মে ঈদ সাপেক্ষে ১৩ মে খোলা রাখতে বলেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

যেসব উপজেলায় গার্মেন্টস কারখানা নেই, সে সব উপজেলায় ঈদের আগে মাত্র দুই দিন ব্যাংক খোলা।