আড়ংয়ের লাখ টাকা জরিমানা

 আড়ংয়ের আসাদগেট আউটলেটকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন। বৃহস্পতিবার (৬ মে) করোনা সংক্রান্ত স্বাস্থ্যবিধি না মেনে ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত ক্রেতা অবস্থান করায়  এই   অভিযানে চালানো হয়। অভিযানে উপস্থিত ছিলেন ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম। তিনি আউটলেটের ভেতরে জনসাধারণকে সচেতন করতে মাইকিং করেন।

এ সময় মেয়র আতিক বলেন, ‘ভেতরে মার্ক করা আছে, সেই মার্কের মধ্যে সবাই দাঁড়াবেন। ভুলে গেলে চলবে না আমাদের পরিবার কিন্তু আছে। মেয়র হিসেবে আমি নিজেই এসেছি। আমি বলতে এসেছি যে, আপনাদের নিজেদেরই সাবধান হতে হবে। নিজে সাবধানতা অবলম্বন করলে পরিবার বাঁচবে, শহর বাঁচবে এবং দেশ বাঁচবে।’

তিনি বলেন, ‘আপনাদের অনুরোধ করছি, সামাজিক দূরত্ব মেনে আপনারা সবাই দাঁড়াবেন। কাউন্টারে যারা আছেন, তারা লক্ষ্য রাখবেন ক্রেতা যেন মার্ক করা জায়গায় দাঁড়ায়। এছাড়া কেউ কাউন্টারে ভিড় করবেন না। মাস্ক পড়ুন, সামাজিক দূরত্ব মেনে চলুন।’

এ সময় ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত ক্রেতা থাকায় আড়ংকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেন ডিএনসিসির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাজওয়ার আকরাম সাকাপি ইবনে সাজ্জাদ।

আড়ং কর্তৃপক্ষ জানায়, আমরা মাস্ক পরে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই মার্কেট খোলা রেখেছি। কিন্তু ক্রেতাদের মানাতে পারছি না। নিষেধ করার সত্ত্বেও অনেকে চলে আসেন। একজন  ক্রেতার সঙ্গে ৩ জন ৪ জন করে চলে আসেন। আমরা চেষ্টা করেও মানাতে পারছি না। এখন মেয়র সাহেব আসছেন, অনেক কথা বলেছেন। আমরা এরপর ওনাদের নির্দেশনা মেনে চলবো।’

পরে এ বিষয়ে মেয়র আতিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘শর্ত ছিল স্বাস্থ্যবিধি মেনে শপিংমল খোলা রাখবে। আড়ংয়ের আসাদগেট আউটলেটে ধারণ ক্ষমতার বেশি ক্রেতা ঢুকেছেন। অনেকে বাচ্চা নিয়ে কেনাকাটা করতে আসছেন। স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত না হওয়ায় আজ  আড়ংকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হলো।