জয় নব্য আওয়ামীলীগের–ধ্বংস হচ্ছে-ত্যাগী কর্মিরা

সবুজ জমিন প্রতিবেদক: ৯০দশক থেকে রাজপথে আন্দোলন সংগ্রাম করে এখনো রাজপথে আছে । বিরোধী দলের প্রতিটি মিছিল মিটিংয়ে সামনের সারিতে ছিল যেই লোক । সেই ভয়াবহ ২১ আগষ্ট বৃষ্টির মত গ্রেনেডে বঙ্গবন্ধু এভিনিউ অন্ধকারে আচ্ছন্ন, জীবন বাঁচাতে এইদিক ঐ দিক ছোটাছুটি করে দলীয় নেতাকর্মীরা, তৎকালীন সময়ে বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের সহধর্মনী আইভী রহমান নিথর দেহ গ্রেনেডের ছোঁয়া ছিন্নভিন্ন হয়ে আছে এভিনিউর সামনে তখনই নিজের জীবন কথা একবারও না ভেবে আইভী রহমানকে বাঁছাতে মরিয়া হয়ে উঠেছে আবুল কাশেম তখন থেকে সবাই তাঁর নাম দিয়েছে আইভী কাশেম।

মহানগর উত্তর আওয়ামীলীগ এর কমিটি অনুমোদন করা হয়েছে। আইভী কাশেম কে নগর উত্তর আওয়ামী লীগের সদস্য করা হয়েছে। তার সিরিয়াল ১০। গত কমিটিতে তার সিরিয়াল ২১ছিল। কমিটি অনুমোদনের পর দলে তার পজিশন দেখে হতাশায় নিমজ্জিত হয়ে পড়ে–

কারন যারা জীবনে বিরোধী দল করেনি তারা অনেকে এখন পদপদবী নেতা বনে গেছেন।

পরিশেষে এইটুকু বলবো-
আবুল কাশেম এর অপরাধ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের আদর্শ কে লালন করে নিরপক্ষ রাষ্ট্র গঠনের প্রত্যয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালি করার মানসে জীবন যৌবন রাজনীতির পিছনে শেষ করা।

আবুল কাশেম দলের নাম ভাঙ্গিয়ে নামে বেনামে টাকার পাহাড় না বানানোই অপরাধ।

আবুল কাশেম প্রতিনিয়ত জামাত বিএনপি বিরোধী মনোভাবটি অপরাধ।

জয় হচ্ছে নব্য আওয়ামীলীগের–ধ্বংস হচ্ছে-ত্যাগী কর্মিরা।
জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু –জয় শেখ হাসিনা।