ইউএনও’র উপর হামলা: আটক যুবলীগের তিন জন বহিষ্কার

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহিদা খানম ও তার বাবা ওমর আলী শেখকে হাতুড়িপেটা ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে গুরুতর আহত করার ঘটনায় এ পর্যন্ত চারজনকে আটক করেছে পুলিশ ও র‌্যাবের যৌথ একটি টিম।

গত বৃহস্পতিবার গভীর রাত থেকে ভোর পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

ইউএনও’র উপর হামলা: আটক যুবলীগের তিন জনকে বহিষ্কার

 

আটককৃতরা হলেন, আসাদুল ইসলাম (৩৫) ঘোড়াঘাট উপজেলা যুবলীগের সদস্য ও ঘোড়াঘাটের ওসমানপুরের সাগরপুর এলাকার আমজাদ হোসেনের ছেলে, জাহাঙ্গীর আলম (৪২) রানীগঞ্জের কশিগাড়ী এলাকার আবুল কালামের ছেলে ও উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক, ঘোড়াঘাটের সিংড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মাসুদ এবং নাইট গার্ড নাহিদ হোসেন পলাশ।আটককৃতদের মধ্যে জাহাঙ্গীরকে নিজ বাড়ি থেকে এবং আসাদুল হককে হাকিমপুর উপজেলার কালিগঞ্জে তার বোনের বাড়ি থেকে আটক করা হয়।

অপরদিকে যুবলীগ থেকে আটক তিনজনকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে বলে জানান, জেলা যুবলীগ সভাপতি রাশেদ পারভেজ।

ঘোড়াঘাট থানা ওসি আমিরুল ইসলাম বলেন, ইউএনওর বাসার সিসি ক্যামেরার ফুটেজ পর্যালোচনা করেই তাদের চিহ্নিত এবং আটক করা হয়েছে। আটক দু’জনকে রংপুরে র‌্যাব-১৩ কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি। গত বৃহস্পতিবার রাতেই এ ঘটনায় ইউএনও ওয়াহিদা খানমের ভাই শেখ ফরিদ বাদী হয়ে ঘোড়াঘাট থানায় একটি মামলা করেছেন।

এ ব্যাপারে বিরামপুর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মিথুন সরকার জানান, এই ঘটনায় ৪ জনকে আটক করা হয়েছে। যুবলীগের আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর আলম, আসাদুল হক ছাড়াও ওই সরকারি বাসভবনের নাইট গার্ড নাহিদ হোসেন পলাশ ও সিংড়া ইউনিয়ন যুবলীগের মাসুদকে আটক করা হয়েছে।

দিনাজপুর জেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদ পারভেজ জানান, আটক ঘোড়াঘাট উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম ও সদস্য আসাদুল হককে কেন্দীয় যুবলীগ থেকে বহিষ্কার করেছে দল। ঘোড়াঘাট উপজেলার সিংড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মাসুদকে জেলা যুবলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার দিবাগত রাত তিনটায় দুষ্কৃতকারীরা ঘোড়াঘাট উপজেলা পরিষদ চত্বরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহিদা খানমের সরকারি বাসভবনে প্রবেশ করে। হত্যার উদ্দেশ্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও তার বাবা ওমর আলীকে কুপিয়ে ও হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করে গুরুতর জখম করে।

বর্তমানে ঢাকায় চিকিৎসাধীন ওয়াহিদা খানমের জ্ঞান ফিরেছে। তার অবস্থা এখন স্থিতিশীল রয়েছে।

শুক্রবার ন্যাশনাল ইন্সটিউট অব নিউরোসাইন্স বিভাগের নিউরোট্রমা বিভাগের প্রধান ডা. জাহিদ হাসান সাংবাদিকদের জানান, ওয়াহিদা খানমের সিটি স্ক্যান ফলাফল খুব ভালো, এক্সিলেন্ট, অপারেশন সাকসেসফুল, তবে এখনও শঙ্কামুক্ত নন তিনি।