লক্ষ্মীপুরে কর্মহীন মানুষকে খাদ্য দিচ্ছেন এমপির প্রতিনিধি বায়েজীদ

সবুজ জমিন : করোনাভাইরাসের সংক্রামন প্রতিরোধে ঘর বন্দী হয়ে আছেন লক্ষ্মীপুর জেলার কর্মহীন মানুষরা। তাই ঘরে ঘরে সরকারের বরাদ্ধকৃত খাদ্য পৌঁছে দিতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন জেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ন আহবায়ক মোঃ বায়েজীদ ভূঁইয়া।

এদিকে লক্ষ্মীপুর-৩ (সদর) আসনের সাংসদ একেএম শাহজাহান কামাল খাদ্য বিতরণে কোন অনিয়ম সহ্য করা হবে না বলে কঠোর হুশিয়ারি দেন। এছাড়া জেলার সকল জনপ্রতিনিধি ও বৃত্তবানদের দরিদ্র জনগোষ্ঠির পাশে দাঁড়ানোর জন্য আহবান জানান।

৮ এপ্রিল বুধবার সকাল থেকে সদর আসনের বিভিন্ন ইউনিয়নে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। সাবেক বিমান ও পর্যটনমন্ত্রী শাহজাহান কামাল এমপির ব্যক্তিগত উদ্যোগে এবং সরকারি বরাদ্ধ থেকে আজ ১১তম দিনে কর্মহীন মানুষদের মাঝে চাল, ডাল নিত্য প্রয়োজনীয় খাবার বিতরণ করেন এপিএস বায়েজীদ ভূঁইয়া।

এব্যাপারে সাবেক বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী একেএম শাহজাহান কামাল মুঠোফোনে বলেন, করোনা ভাইরাস সারা বিশ্বসহ বাংলাদেশের উপর যে আঘাত এনেছে তার থেকে মুক্তি পেতে হলে সরকারের নির্দেশনা মেনে ঘরে থাকুন, সামাজিক দূরত্ব মেনে চলুন। সারাদেশের তুলনায় লক্ষ্মীপুর এখনো ভালো আছে। সরকারের পক্ষ থেকে গরীব দরিদ্র মানুষের জন্য পর্যায় ক্রমে খাদ্যসামগ্রীর ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

ইতোমধ্যে আমার পক্ষ থেকে আপনাদের বাড়ী বাড়ী খাবার পৌছে দেওয়া হচ্ছে। আমি জনপ্রতিনিনিধিদের বলছি আপনারে মানুষজনকে ইউনিয়ন পরিষদে ডেকে না এনে, ঘরে ঘরে খাবার পৌছে দিন। আর খাদ্য বিতরণে কোন অনিয়ম সহ্য করা হবে না। তিনি এসব গবীর দরিদ্র মানুষের সহায়তা করার জন্য এলাকার বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহব্বান জানান।

উল্লেখ্য, হটলাইন নাম্বারে কল আসার পর ইতোমধ্যে প্রায় ২ শতাধিক পরিবারের মাঝে বাড়ি গিয়ে খাদ্য পৌঁছিয়ে দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও টানা ১০ দিনে লক্ষ্মীপুর সদর আসনের ২ হাজার ৭ শ পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। দেওয়া হয়েছে ৩ হাজার হ্যান্ড গ্লাভস, ১০ হাজার মাস্ক, ৫ হাজার হ্যান্ড স্যাটিটাইজার ও ২ হাজার সাবান।