ছাত্রলীগ কর্মী হত্যার প্রতিবাদের মিছিলে লক্ষ্মীপুরে দফায় দফায় সংঘর্ষ

সবুজ জমিন প্রতিবেদক: নোয়াখালীতে রাকিব হত্যার প্রতিবাদের বিক্ষোভ মিছিল করেছে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা দালাল বাজার ইউনিয়ন ছাত্রলীগ। আজ সকাল ১১টায় দালাল বাজার ডিগ্রি কলেজ প্রাঙ্গন থেকে মিছিলটি বের হয়ে বাজারের প্রধান সড়কে পদক্ষিণের সময় হঠাৎ মিছিলের মধ্যে কর্মীদের মধ্যে হাতাহাতির একপর্যায়ে কয়েক দফা মারামরির ঘটনা ঘটে। ছাত্রলীগ কর্মীরা বলছেন বাজারের মিছিল চলাকালীন সময়ে কয়েকজন ছাত্রশিবির কর্মী আলামীন ও পাবেল সহ ৭/৮জন মিছিলে ঢুকে ছাত্রলীগের কর্মীদের উপর হামলা চালায়। এসব বহিরাগত হামলাকারী ছাত্রশিবির কর্মীরা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সম্পাদক অপু গ্রুপের কর্মী বলে জানান আহত ছাত্রলীগ নেতা তারেক হোসেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা প্রতিবেদক জানান, মিছিল চলাকালীন সময়ে দালাল বাজার ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মাহবুবুল হাসান অবি, সাধারন সম্পাদক অপু গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক তাদের কর্মীদের নিয়ন্ত্রনে আনার চেষ্টা করেন।

দালাল বাজার ৩ নং ওয়ার্ড ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক তারেক হোসেন জানান, কেন্দ্রীয় কর্মসূচির ন্যায় আমরা দালাল বাজার ডিগ্রি কলেজ থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে বাজারে আসার সাথে সাথে শিবিরি কর্মী আলামিন ও পাবেল সহ কয়েকজন মিছিলে ঢুকে আমাদের উপর হামলা করে। এরা বর্তমানে অপু ভাইয়ের সাথে যোগ দিয়ে আমাদের উপর এ হামলা করে।

দালাল বাজার ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মাহবুবুল হাসান অবি প্রতিবেদককে বলেন, ছাত্রশিবিরের কিছু ছেলেরা এখন নব্য ছাত্রলীগ। মিছিলে যখন ছাত্র শিবিরের বিরুদ্ধে শাউটিং দেওয়া হয় তখনোই এসব (শিবির) নব্য ছাত্রলীগ প্রকৃত ছাত্রলীগের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এর তীব্র নিন্দা প্রতিবাদ জানান তিনি।

এ বিষয়ে দালাল বাজার ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক অপু মুঠোফোনে প্রতিবেদক কে জানান, আলামীন ও পাবেল কে ছাত্রশিবির বলে যে বক্তব্য তারা দিয়েছে তা সত্য নয়। আলামীন ও পাবেলের ছাত্রলীগের সক্রিয় কর্মী । প্রতিটি মিছিলে মিটিং তারা নিয়মিত অংশগ্রহন করে। আজকে মিছিলে যে ঘটনা ঘটছে শীগ্রই আমরা বসেই সমাধান করবো।

এ বিষয়ে সদর থানার এ এসআই ইলিয়াস মুঠোফোনে প্রতিবেদক জানান, পূর্বে দ্বন্দ্বের জের ধরেই ছাত্রলীগের কর্মীদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে। তবে তাৎক্ষণিক কাউকে আটক করা হয়নি। আহতদের কে হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়া পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।