লক্ষ্মীপুরে জামাত নেতা সহ ১৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

স্টাফ রিপোর্টার। লক্ষ্মীপুরে স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে নির্যাতন ও বসত ঘর উপরিয়ে ফেলার অভিযোগে ১৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। নির্যাতীতা নারগিসের স্বামী মোস্তফা বাদী হয়ে ঘটনার সাথে জড়িত ১৬ জনকে বিবাদী করে ৩০ ডিসেম্বর ২০১৯ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করিলে আদালত তা আমলে নিয়ে লক্ষ্মীপুর মডেল থানাকে মামলাটি এফ আই আর করার আদেশ প্রদান করিলে লক্ষ্মীপুর মডেল থানা মামলাটি রেকর্ড করেন। বিবাদী ১নং আসামী হলেন, দালাল বাজার ইউনিয়ন জামায়েত ইসলামের সেক্রেটারী আশ্রাফুর রহমান বাবুল, তার বড় ভাই আব্দুর রব, আহম্মেদ ফারুক, আবুল কাশেম, আব্দুল লতিফ উভয়ে পিতা মৃত মৌলভী আজিজুর রহমান, । সুজন পিতা আব্দুল হাই, দেলোয়ার পিতা আব্দুর রব, টিটু-পিতা মৃত তছলিম উদ্দিন, সর্বে সাং মহাদেবপুর ৩নং ওয়ার্ড, রিয়াজ: পিতা মৃত শাহাবুদ্দিন, কামরুল ইসলাম পিতা মৃত সোলেমান, সাং পশ্চিম লক্ষ্মীপুর, আরো ৬জন। বাদী ও বিবাদী সদর উপজেলার ৩নং দালাল বাজার ইউনিয়নের বাসিন্দা।
মামলা সুত্রে যানা যায়, ২৭ ডিসেম্বর শুক্রবার বিকালে বিবাদীরা কয়েকজন অচেনা উশৃংখল যুবক সংঘবদ্ধ দেশীয় অস্ত্র স্বস্ত্র সজ্জিত হয়ে বাদি মোস্তফার বসত ঘর ভাংচুর করে। এসময় মোস্তফা ও তার স্ত্রী নারগিস বাঁধা দিলে বিবাদীগন ক্ষিপ্ত হয়ে মোস্তফা কে বেঁধে তার স্ত্রী নারগিছ কে বেদম মারধর করে মাটিতে পেলে দেশীয় চাকু দিয়ে তার শরীরের বিভিন্ন অংশে আঁকে দেয় এবং বাদীর বৃদ্ধ বাবাকে ও মারধর করে । এসময় বিবাদীরা বাদীর বসতঘর উপরিয়ে ফেলে এবং ঘরের মালমাল পাশের খালে ও বিভিন্ন জায়গায় ফেলে দেয়।

বাদী মোস্তফা প্রতিবেদককে জানান, বিবাদী ও তিনি একই ইর্শার লোক। তিনি তার ১১২ ডিং ভূমির মধ্যে দীর্ঘদিন বসবাস করে আসছেন । বিবাদীরা জমি বিরোধের জের ধরে তাকে বিভিন্ন সময়ে মারধর ও হত্যার হুমকী দিয়ে আসছে ঘটনার ২ মাস আগেও তিনি নিজে বাদী হয়ে জীবনের নিরাপত্তার চেয়ে লক্ষ্মীপুর ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ৭ ধারা একটি মামলা দায়ের করেন। কিন্তু বিবাদীগন কোন আইনকে তোয়াক্কা না করে আমার বসত ঘর ভাংচুর করে এবং আমাকে বেঁধে আমার স্ত্রীকে প্রহার করে। তাই আমি নিরুপায় হয়ে আসামীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য এবং সুবিচারের পাওয়ার স্বার্থে লক্ষ্মীপুর সিনিয়িল জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করিলে আদালত থানাকে মামলাটি গ্রহন করার নিদ্দেশ দেন । বর্তমানে লক্ষ্মীপুর সদর থানা মামলাটি রুজু হয়েছে।
বাদী মোস্তফা আরো বলেন এর পুর্বেও জামাত নেতা আশ্রাফুর রহমান বাবুলসহ ৭/৮ জন আমাকে মারধর করে ঘরের মালামাল লুট করার দায়ে তাদের বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে।