লক্ষ্মীপুরে চাঁদাবাজি ও পাওনা টাকার অভিযোগে পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন

 

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরে চাঁদাবাজি এবং পাওনা টাকার অভিযোগে এনে পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন করেছে মেয়র আবু তাহেরের পুত্র আফতাব উদ্দিন বিপ্লবের অনুসারী আব্দুল মান্নান। আব্দুল মান্নান লক্ষ্মীপুর পৌর ০৩ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। অপর দিকে এর আগে ২৬মে রবিবার দুপুর ২টায় শহরের ঐতিহ্যবাহী সেন্টারে ১০ লক্ষ টাকার চাঁদা দাবি ও মারধরের অভিযোগ এনে আফতাব উদ্দিন বিপ্লবের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন জেলা শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক মামুনুর রশিদ। এই নিয়ে উভয় পক্ষ একে অপরের বিরুদ্ধে লক্ষ্মীপুর মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেন । পুলিশ বলছে দুইটি অভিযোগের তদন্ত চলছে।

২৭ মে সোমবার সকাল ১০টায় লক্ষ্মীপুর প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে আব্দুল মান্নান বলেন, মামুনুর রশিদ তার থেকে ২০ লক্ষ টাকার নির্মাণ সামগ্রী নেয় এবং সামগ্রী নেওয়ার সময় ১০ লক্ষ টাকার একটি চেক দেয় মামুন ও আশ্রাফ। পাওনা টাকা চাইতে

গেলে মামুন তার সহপাটিরা তাকে মারধর করে। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে লক্ষীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে হামলাকারি মামুনকে অভিযুক্ত করে লক্ষ্মীপুর থানা একটি এজহার দায়ের করি। আব্দুল মান্নান তার লিখিত অভিযোগে আরো বলেন, মামুন এখানে ক্ষ্যন্ত না হয়ে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন জায়গা আমাকে ও লক্ষ্মীপুর মেয়র আবু তাহের ও আফতাব উদ্দিন বিপ্লবকে জড়িয়ে মিথ্যা বানোয়টা তথ্য প্রচার করে। এতে আমাদের মানসম্মান ক্ষুন্ন করা ষড়যন্ত্র চলছে বলে আমি মনে করি। তাই মামুনের অসত্য তথ্য প্রচারের তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করেন আব্দুল মান্নান।

অপর দিকে জেলা শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক মামুনুর রশিদের তার লিখিত বক্তব্যে বলেন, আফতাব উদ্দিন বিপ্লব ও তার অনুসারিরা ১০ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে। এতে চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় তাকে উঠিয়ে নিয়ে মারধর করা হয়। এই নিয়ে বিপ্লব সহ ৮/১০ জনের বিরুদ্ধে লক্ষ্মীপুর সদর থানায় একটি এজহার দায়ের করেন তিনি।

এদিকে একটি স্থানীয় রাজনৈতিক মহলে সুত্রে থেকে জানা যায়, টেন্ডারের টাকা ভাগভাগি নিয়ে উভয় পক্ষে মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়। এ বিরোধের জের ধরে আওয়ামী রাজনীতিতে বিভাজন সৃষ্টি হওয়ায় আওয়ামী লীগ ও সরকারের ভাবমূতি ক্ষুন্ন হচ্ছে বলে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করেন।