যৌতুক চাওয়ায় বরকে পেটালো কনে

সবুজ জমিন: কলেজ থেকে স্নাতক ডিগ্রি পাস করার দুই বছরের মাথায় পরিবার ভালো পাত্র দেখে মেয়েটির বিয়ে ঠিক করে। মেয়েটি অংকে খুব ভালো। ছোটবেলা থেকেই বেশ আত্মসম্মানবোধ সম্পন্ন বলে জানা যায়। সেই মেয়েটি তার হবু স্বামী বিয়ের আসরে যৌতুক চাওয়ায় গলার মালা খুলে প্রকাশ্যে বরকে বেধড়ক পিটিয়েছেন।

মেয়েটির বাড়ি ভারতের আসাম রাজ্যের রাজধানী গোহাটিতে। তার নাম রুমেলা। বয়স ২৬ বছর। স্থানীয় একটি সরকারি কলেজ থেকে অংকে স্নাতক। স্থানীয়রা বলছেন, ছোটোবেলা থেকেই রুমেলা খুব সহজ মন আর আত্মসম্মানী স্বভাবের। বন্ধু মহলেও যথেষ্ট খ্যাতি রুমেলার এই বিশেষ গুণটির জন্যই।

রুমেলারই বিয়ে ঠিক হয় সন্তোষ নামের ২৮ বছর বয়সী এর যুবকের সঙ্গে। যিনি একটি বেসরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং ফার্মে কাজ করেন। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন বলছে, বিয়ের দিন সকালেই মেয়ের বাবার কাছ থেকে ৭ লাখ টাকা যৌতুক চায় ছেলের পরিবার।

কিন্তু বিয়ে করতে এলে ছেলের বাবা যৌতুকের টাকা নগদ বুজিয়ে দেয়ার জন্য চাপ দেন। বিষয়টি নিয়ে প্রথমে নিচু স্বরে কথা হলেও পরে ক্রমশ খারাপ ব্যবহার করতে থাকেন বরের পরিবারের মানুষরা। টাকা শোধ করা না হলে তারা বিয়ের আসর থেকে বরকে উঠিয়ে বাড়ি ফিরে যাওয়ার হুমকি দেন।

এমন কথা শোনার পর মেয়ের বাবা বরের বাবার পা জড়িয়ে ধরে এমনটা না করার অনুরোধ করেন। বাবার এমন অসহায়ত্ব সহ্য করতে পারে না রুমেলা ছুটে এসে এক ছেলের বাবার গালে চড় মারেন। গলার মালা খুলে বরকে ক্রমশ পেটাতে থাকেন। পাশের মানুষজন এসে রুমেলাকে আটকায়। রুমেলা বিয়ে করবেন না জানিয়ে বরপক্ষকে গলা ধাক্কা দিয়ে বাড়ি থেকে বের দেন।