স্ত্রীর ক্যান্সার,মেয়ে অসুস্থ, দুইটি জীবন বাছাঁতে স্বামীর আকুতি

সবুজ জমিন প্রতিবেদক: দীর্ঘদিন থেকে স্ত্রী রাজিয়া সুলতানা ক্যান্সার ও মেয়ে আপরিন সুলতানা অসুস্থ রোগে ভুগিতেছে। নিজের সর্বস্ব ও বিভিন্ন মানুষের দিয়ে স্ত্রীকে দুবার দেশের বাহিরে ইন্ডিয়া মাদ্রাজ হাসপাতালে চিকিৎসা করা হয়। এখন আবারো ইন্ডিয়া মাদ্রাজ হাসপাতালে ডাক্তার দেখনো জরুরী হয়ে পড়ছে। কিন্তু কি ভাবে স্ত্রীকে চিকিৎাসা করাবে এ নিয়ে সারাক্ষণ দুশ্চিন্তা কাটে দিন মজুর আক্তারের। দুইটি জীবন বাঁছাতে প্রতি মাসে ৩৬ হাজার টাকা ওষুধ কিনতে হয় দিনমজুর আক্তারের।

আক্তারের গ্রামের বাড়ী লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুর উপজেলা ৭নং বামনী ইউনিয়নে সাইচা গ্রামে ৭নং ওয়ার্ডে আব্বাস আলী হাজী বাড়ী।

সাংবাদিকদের জড়িয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন আক্তার। আক্তার বলেন ৫/৬ বছর আগে আমার স্ত্রী হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে লক্ষ্মীপুর সরকারী হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার সালাহ উদ্দিন স্যারের নিকট নিয়ে যাই।

তিনি দ্রুত ডাকা ল্যাব এইড

হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন। ডাক্তারী পরিক্ষা নিরিক্ষায় ব্রুন ক্যান্সার কিডনীতে রোগ ধরা পড়ে। চিকিৎসা করা হয় সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার ইন্ডিয়া মাদ্রাজ বেলোর হাসপাতালে নেওয়া পরামর্শ দিলে পরে বিভিন্ন মানুষের সহযোগিতা ও নিজের সর্বস্ব দিয়ে তাকে ইন্ডিয়া মাদ্রাজ হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করাই। সেখানে মাস খানেক চিকিৎসা দেওয়া হয়। এরপর একটু সুস্থ হলে বাড়ীতে নিয়ে আসি। ডাক্তারের পরামর্শে ৩মাস পর আবার ইন্ডিয়া মাদ্রাজ হাসপাতালে নেয়া হয়।
সেখানে মুটামোটি সুস্থ হলে তাকে দেশের বাড়ীতে নিয়ে আসা হয়। ডাক্তার পরামর্শ এখন আবার তাকে ইন্ডিয়া নিতে হবে। ডাক্তার বলেছেন এখন নিলে ইনশ-আল্লাহ আবার সবার মাঝে সুস্থ হয়ে ফিরে আসবেন তার স্ত্রী। এদিকে ১০ বছরের মেয়ে আপরিন সুলতানা অসুস্থ তাকে ঢাকা কর্মী টলা হাসপাতালে নেওয়ার পর ও সিএমএস হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে। স্ত্রী ও মেয়েকে সু-চিকিৎসা চিকিৎসা করাতে পারলে হয়তো ভালো ভাবে বাঁছবে দুইটি জীবন। এই আশায় এখানো স্বামী আক্তার মানুষের দ্বারে দ্বারে গিয়ে সাহায্যের জন্য আকুতি করছেন । সাংবাদিকদের লেখনীতে হয়তো কোন মহান (মানবতা) মানুষের দৃষ্টিতে পড়লে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিবে এমনিই প্রত্যাশা করছেন দিনমজুর আক্তার।

আক্তার যোগাযোগ নম্বর ০১৭৫৮০৭৪৭৩৯, ০১৭১২৫৫৯৪৮৭।