ময়লা দিন-মাস্ক অথবা কলম নিন : বিডি ক্লিন

সবুজ জমিন প্রতিবেদক: ময়লা দিন-মাস্ক অথবা কলম নিন : বিডি ক্লিন লক্ষ্মীপুর, লক্ষ্মীপুর : ‘অমর একুশে গ্রন্থমেলায় আগত দর্শনার্থীদের জানাই বিডি ক্লিন-লক্ষ্মীপুরের পক্ষ থেকে সালাম ও শুভেচ্ছা। আপনার ব্যবহৃত ময়লা দিয়ে নিয়ে যান, মাস্ক অথবা কলম। অভ্যাস বদল করুন, যেখানে সেখানে ময়লা ফেলা বন্ধ করুন। ময়লার শেষ আশ্রয় হোক আমার-আপনার পকেট, ব্যাগ অথবা নির্দিষ্ট ডাস্টবিন। পরিবেশ পরিচ্ছন্ন হবে, যদি সবাই উদ্দ্যোগী হয়ে করি ভুলের দমন। অভ্যাস বদল করুন, যেখানে সেখানে ময়লা ফেলা বন্ধ করুন। ময়লা নিয়ে, বিডি ক্লিন-লক্ষ্মীপুরের স্টলে আসুন’।
আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসন কর্তৃক আয়োজিত বই মেলার ২য় দিন সন্ধ্যায় হাতমাইকে এমন বাক্যগুলো উচ্চারণ করছেন বিডি ক্লিন-লক্ষ্মীপুর শাখার সদস্য মাহমুদুল হাসান।
জানা যায়, গত বছরের শুরুতে বিডি ক্লিন-লক্ষ্মীপুর শাখার কার্যক্রম শুরু হয়। এরপর থেকেই মাসের প্রতি শুক্রবার জেলার কোন একটি অঞ্চলের ময়লা পরিস্কার করেন সংগঠনটির স্বেচ্ছাসেবকরা। এছাড়াও সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রামান্য চিত্র প্রদর্শন করে থাকেন। সংগঠনটির এই শাখায় বর্তমানে স্বেচ্ছায় ১২০ জন সদস্য কাজ করছেন। সকল সদস্যই জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যায়নরত। সংগঠনটির সকল কার্যক্রম করা হয় সদস্যদের টাকা দিয়ে।
সংগঠনটির লক্ষ্মীপুর শাখার মডারেটর আশরাফুল মোবারক ও অনন্ত রবিন বলেন, স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে বাংলাদেশকে একটি পরিচ্ছন্ন ও সুনাগরিকদের রাষ্ট্র হিসাবে ঘোষণা ও বহি:বিশের্^র কাছে স্বীকৃতি দেওয়া। আর সে লক্ষ্যেই পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার কাজ করছে বিডি ক্লিন। ইতিমধ্যেই ‘পরিচ্ছন্নতা শুরু হোক আমার থেকে’ এই শ্লোগানে দেশের ৫০টি জেলায় সংগঠনটি কাজ করছে। দ্রুত অন্যন্য জেলাগুলোতেও কাজ শুরু করবে।
লক্ষ্মীপুর সরকারি মহিলা কলেজের একাদশ শ্রেনীর শিক্ষার্থী ইসরাত বিনতে মাইশা। তিনিও পড়ালেখার পাশাপাশি কাজ করছেন স্বেচ্ছাসেবী এই সংগঠনটিতে। আলাপকালে তিনি বলেন, নিজে সচেতন থাকা এবং অন্যজনকে সচেতন করা আমার কর্তব্য। আমি আমার কর্তব্যটুকুই করছি।
সংগঠনটির লক্ষ্মীপুর সমন্বয়ক সাহিদুজ্জামান সৈকত বলেন, যত্রতত্র ময়লা-আবর্জনা ছুড়ে না ফেলে নির্দিষ্ট স্থানে ময়লা ফেলার অভ্যাস তৈরির জন্যই মানুষকে সচেতন করার চেষ্টা করছি। আর এ কাজটি আমরা নিজেদের খরচেই করছি। এছাড়াও মাসের প্রতি সপ্তাহে জেলার নির্দিষ্ট একটি স্থানের ময়লা পরিস্কার করেন সংগঠনটির স্বেচ্ছাসবেকরা।