রায়পুরে হাই‌ড্রোজ মিশা‌নো সুপারী সংবাদ সংগ্র‌হে সাংবা‌দি‌ককে প্রাণ নাসের হুমকি

 

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ লক্ষীপুরের রায়পুরে সোমবার (০৪ ফ্রেব্রুয়ারী) সন্ধ্যায় ৩নং চরমোহনা ইউনিয়নে বিষাক্ত হাই‌ড্রোজ মিশা‌নো ২’শ বস্তা সুপারীসহ ১টি পিকআপ আটক ক‌রে‌ছে রায়পুর থানা পু‌লিশ। আটকৃত পিকআপটির নং ঢাকা মেট্রো ড-১৪-৭৫১৯। মানবদে‌হের জন্য মারাত্মক ক্ষ‌তিকারক ক্যা‌মি‌কেল মি‌শ্রিত আটককৃত সুপারীগু‌লোর মা‌লিক ৩নং চর‌মোহনা এলাকার ব্যবসায়ী মনির মোল্লা ব‌লে জানা গে‌ছে। পু‌লিশের এক‌টি সূ‌ত্রে জানাযায়, মারাত্মক বিষাক্ত ক্যামিকেল হাইড্রোজ মিশা‌নো বেশ ক‌য়েক’শ বস্তা ভিজা‌নো সুপারী একই এলাকার মিজান হাওলাদারের আড়তে নেওয়া হ‌চ্ছে ব‌লে গোপন সংবাদ পে‌য়ে এসআই মা‌নিক চন্দ্র বড়ুয়ার নেতৃ‌ত্বে পু‌লিশ পিকআপ ভ‌র্তি ২’শ বস্তা ভিজা‌নো সুপারী সহ পিকআপ‌টি আটক ক‌রে। এসময় ড্রাইভার ও হেলপারকেও আটক ক‌রে পুলিশ।

সংবাদ পে‌য়ে আমি রাত সাড়ে বারটার মোহনা টিভির ক্যা‌মেরা নি‌য়ে না‌জিম উ‌দ্দিন রিয়াদ থানায় গি‌য়ে দে‌খে‌তে পায়, আটককৃত সুপারীসহ পিকআপ‌টি থানা থে‌কে বে‌ড়ি‌য়ে যা‌চ্ছে। এসময় আমি পিকআ‌পের ড্রাইভার‌কে জি‌জ্ঞেস কর‌লাম সে আমাকে ব‌লেন দা‌রোগা সা‌হে‌বের সা‌থে মা‌লি‌কের কথা হ‌য়ে‌ছে, সে এগু‌লি নি‌য়ে এখন সৈয়দপুর যা‌বে। ক্যা‌মেরা সহ সাংবা‌দি‌কের উপ‌স্থি‌তি পু‌লিশ দে‌খে ফেল‌লে পিকআপ‌টি পুনরায় থানার অভ্যন্ত‌রে ঢোকা‌নো হয়। এসময় এসআই মানিক চন্দ্র বড়ুয়া উ‌ত্তে‌জিত হ‌য়ে আমার দি‌কে তে‌ড়ে এ‌সে ক্যা‌মেরা কে‌ড়ে নেয় এবং উ‌ত্তে‌জিত হ‌য়ে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ ক‌রে প্রাণনাশসহ নানান হুমকী-ধমকী প্রদান ক‌রে।

একা‌ধিক সূ‌ত্রে জানাযায়, সুপারী ব্যবসায়ী মিজান হাওলাদারের নেতৃত্বে দীর্ঘ‌দিন ধ‌রে দেশের বিভিন্ন জেলায় বিষাক্ত হাই‌ড্রোজ ক্যামি‌কেল মি‌শা‌নো সুপারী বি‌ক্রি ক‌রে আস‌ছে।

প্রঙ্গত, গত বছর রায়পুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিল্পী রানী রায় এর নিকট ভ‌বিষ্য‌তে আর ভেজা‌নো সুপারী‌তে বিষাক্ত হাই‌ড্রোজ মেশা‌বেননা ব‌লে রায়পুরের সকল সুপার‌ী ব্যবসায়ীরা লিখিত অ‌ঙ্গীকার প্রদান ক‌রেন। এরপরও মিজান হাওলাদার কোন তোয়াক্কা না ক‌রে বীর দাপ‌টে প্র‌তি‌নিয়্যত ভিজা‌নো সুপারীতে মানব দে‌হের জন্য ক্ষতিকারক হাই‌ড্রোজ মি‌শি‌য়ে তা বি‌ভিন্ন জেলায় পাঠা‌চ্ছেন।

উ‌ল্লেখ্য, পাঁকা সুপারী বস্তায় ভ‌রে পা‌নি‌তে ডু‌বি‌য়ে রাখা হয়। পা‌নি তা পঁ‌চে আশপা‌শের এলাকায় মারাত্মক দূর্গন্ধের সৃ‌ষ্টি হয়। ঢাকা, চট্টগ্রাম সহ দেশের অ‌নেক এলাকায় ভিজা‌নো সুপারীর প্রচুর চা‌হিদা থাকায় শুধুমাত্র রায়পু‌রেই প্রায় ২০ থে‌কে ৩০ লাখ বস্তা সুপারী পা‌নি‌তে ভিজা‌নো হয়। এসব সুপারী দীর্ঘ‌দিন পা‌নি‌তে ভি‌জে চামড়া পঁ‌চে কাল‌চে রং ধারন ক‌রে। ক্রেতা‌দের আকর্ষ‌ন অ‌ধিক মূ‌ল্যের প্রত্যাশায় এক শ্রেণীর অসাধু ব্যবসায়ী সুপারীর রং হলুদ ও উজ্জ্বল কর‌তে মানব দে‌হের জন্য মারাত্মক ক্ষ‌তিকারক হাই‌ড্রোজ নামক ক্যা‌মি‌কেল মি‌শি‌য়ে গোপ‌নে বি‌ক্রি ক‌রে ।