সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আলোচনায় শীর্ষে প্রকৌশলী কামাল

 

সবুজ জমিনঃ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন শেষ হতে না হতেই আবার সর্বত্রই আলোচনার কেন্দ্র হিসেবে দাড়িয়েছে আগামী উপজেলা নির্বাচনে লক্ষীপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী   গ্রাম থেকে শহরে সর্বত্রই চলছে আলোচনা, উঠছে চায়ের কাপে ঝড়  সর্বত্রে শুনা যাচ্ছে বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মরহুম হোসেন আহম্মেদ চৌধুরীর সন্তান প্রকৌশলী মুক্তার হোসেন চৌধুরী কামালের নাম। বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের ভাষ্য অনুযায়ী আগামী ফেব্রুয়ারী মাসে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা করার কথা। এ নিয়ে নবীন ও প্রবীণ সম্ভাব্য প্রার্থীরা শুরু করেছে নিজেদের প্রচার প্রচারণা। এ সকল সম্ভাব্য প্রার্থীদের সমর্থকেরা ফেসবুক সহ বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপক প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে।

 

এছাড়া সদর উপজেলার বিভিন্ন হাট, বাজার ও গুরুত্বপূর্ণ স্থান পোষ্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন দিয়ে ছেয়ে গেছে প্রকৌশলী মুক্তার হোসেন চৌধুরী কামালের। উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে আলোচনায় বিভিন্ন জনের নাম আসলেও আলোচনার কেন্দ্র হিসেবে সবার শীর্ষে রয়েছে ক্লিন ইমেজখ্যাত তৃণমূলের পরীক্ষিত ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের অন্যতম নেতা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী মুক্তার হোসেন চৌধুরী কামাল।

ইতিমধ্যে লক্ষীপুর সদর আওয়ামী লীগের অনেক নেতাই নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার বিষয়ে জানান দিচ্ছেন। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গণমাধ্যম কর্মী ও দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে অনেকেই আগাম শুভেচ্ছা ও যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন। এরই ধারাবাহিকতায় প্রকৌশলী মুক্তার হোসেন চৌধুরী কামাল লক্ষীপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে নির্বাচনী কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছেন।

প্রকৌশলী মুক্তার হোসেন চৌধুরী কামাল এর শিক্ষাজীবন শুরু হয় লক্ষীপুর সদরে অবস্থিত পশ্চিম নন্দনপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে। তিনি নন্দনপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে প্রথম বিভাগে এসএসসি, লক্ষীপুর সরকারী কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। ঢাকায় অবস্থিত সাইক পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট হতে ডিপ্লোমা ইন আর্কিটেকচার এবং উত্তরা ইউনিভার্সিটিতে বিএসসি ইন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারং বিভাগ ডিগ্রী অর্জন করেন।

প্রকৌশলী মুক্তার হোসেন চৌধুরী কামাল এবারের উপজেলা পরিষদের নির্বাচন দলীয় প্রতীকে অনুষ্ঠিত হবে জানিয়ে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যদি আমাকে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন দেন তাহলে আমি বিপুল ভোটে জয়ী হয়ে নির্বাচিত হয়ে প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে পারবো আশাবাদ ব্যক্ত করেন।