মরবো না হয় বাঁচবো তবুও কেন্দ্র ছেড়ে যাবো না ।। এ্যানী

সবুজ জমিন প্রতিবেদক ঃঃ  নির্বাচন-বাঁচা মরার নির্বাচন, হয় মরবো না হয় বাঁচবো তবুও কেন্দ্র ছেড়ে যাবো না। কেন্দ্র ছাড়বে না বিএনপি-কেন্দ্র ছাড়বে না ধানের শীষ। হাসিনার রক্তচক্ষুকে ভয় করে না ঐক্যফ্রন্ট। যত বাধাই আসুক এবারের নির্বাচনে পিছপা হবে না বিএনপি। প্রতীক বরাদ্ধের পর লক্ষ্মীপুর সদর আসনের ঐক্যফ্রন্ট মনোনিত প্রার্থী শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী আজ সোমবার দুপুরে নিজ বাসভবনের সামনে নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন। এসময় তিনি বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে বক্তব্য রাখতে গিয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। মতবিনিময় সভায় তিনি আরো জানান, হামলা-মামলা ও প্রশাসনের ভয় দেখিয়ে কোন লাভ হবে না। দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে, এখন সামনে যাওয়ার কোন বিকল্প নেই। রক্তচক্ষু দেখিয়ে কোন লাভ নেই।
তিনি এ সময় প্রশাসনকে উদ্দেশ্য করে আরো বলেন, কোন দলের এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্য আপনারা কাজ করবেন না দয়া করে। সব দলকে সমানভাবে দেখতে হবে। কারো কাছ থেকে অবৈধ সুবিধা নিয়ে বিএনপি দলীয় নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করে, মামলা দিয়ে হয়রানী করবেন না। উপজেলা বিএনপির সভাপতি মাইন উদ্দিন চৌধুরী রিয়াজের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বাচ্চুর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এডভোকেট সৈয়দ মো. সামছুল ইসলাম, জেলা বিএনপি নেতা সিরাজুল ইসলাম খাঁন,নিজাম উদ্দিন ভূইয়াসহ প্রমুখ। এসময় জেলা-উপজেলা,বিভিন্ন ইউনিয়ন বিএনপি,যুবদল,ছাত্রদল,স্বেচ্ছাসেবকদলসহ অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
প্রতীক বরাদ্ধের সময় জেলার চারটি আসনের আওয়ামীলীগ ও বিএনপিসহ বিভিন্ন দলের শত শত নেতাকর্মী জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ভীড় করেন।
এ দিকে লক্ষ্মীপুর সদর আসনের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী এ কে এম শাহাজাহান কামাল প্রতীক পাওয়ার পর পরই চন্দ্রগঞ্জ-জকসিন-মান্দারী ও উত্তর ষ্টেশনসহ জেলা সদরে গণসংযোগে শুরু করেছেন। পাশাপাশি অন্য তিন আসনেও মহাজোট ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টসহ অন্য প্রার্থীরা প্রচারনা শুরু করেছেন।