লক্ষ্মীপুর পৌর শহরে সীমানা বিরোধ নিয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ০১

সবুজ জমিন প্রতিবেদকঃ লক্ষ্মীপুর পৌর শহরে ১৫ নং ওয়ার্ডে সীমানা নির্মাণ বিরোধ নিয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত হয়েছে মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন। ঘটনাটি ঘটেছে ৮ডিসেম্বর শনিবার সকাল ৯টা লক্ষ্মীপুর পৌর শহরের ১৫ নং ওয়ার্ডে আব্দুর রশিদ মাস্টারের বাড়ীতে। হামলায় জড়িত থাকার অভিযোগে চলেমান পিতা মৃত আবুল কাশেম, আব্দুর রহমান পিতা ঐ, কামরুল পিতা ঐ, শিপন (২৫) পিতা আবুল হাসেম ৪জনের বিরুদ্ধে মামলা প্রস্তুতি চলছে বলে জানান আহতের পরিবার। আহতদের কে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সুত্রে জানা যায়, শনিবার সকাল ৯টার দিকে চলেমান লাঠিয়াল বাহিনী নিয়ে আসে জোর পূর্বক সীমানা দেওয়ার জন্য। হেলাল এতে বাধা দিয়ে বলে নিদ্দিষ্ট সীমানায় প্রাচীর নির্মাণ হবে কিন্তু তোমরা আমাদে মালিকানা জমির ভিতরে প্রবেশ করে সীমানা প্রাচীর দেওয়া ঠিক হবে। এই নিয়ে উভয় পক্ষের সাথে বাককিতন্ডার একপর্যায়ে চলেমান ও তার তিন ভাই সহ ১০/১২ জন উশৃংল যুবক রড দিয়ে হেলাল কে এলোপাড়ী বেদম প্রহার করে এসময় কামাল চেনী দিয়ে কুপিয়ে হেলালকে জখম করে সন্ত্রাসীরা দোড়ে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা হেলালকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় কান্নাজড়িত কন্ঠে হেলাল সবুজ জমিনকে জানান সকালে চলেমান ও তার ভাই সহ ১০/১২জন এসে আমাদের জমির ভিতরে প্রবেশ করে জোর পুর্বক সীমানা নির্মান করা চেষ্টা করে । এসময় তাদেরকে বাধা দিলে তার হাতে থাকা চেনী দিয়ে আমার মাথা কুপ দিলে আমি মাটিতে লুঠে পড়ি। পরে জ্ঞান পিরিয়ে আসলে দেখি আমি হাসপাতালে বিছানায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আহত হেলালের পরিবার সবুজ জমিনকে জানান চলেমান, রহমান কামরুল, শিপনসহ ৭/৮জন উশৃংল যুবক অন্যায় ভাবে সন্ত্রাসী কায়দায় আমার স্বামীকে হত্যার উদ্দেশ্য দা দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। হামলা সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের দাবি জানান তিনি। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি । পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

 

এ বিষয়ে জানতে প্রতিবেদক বিবাদীদের বাড়ীতে  গিয়ে কাউকে পাওয়া যায়নি বিধার বিবাদীদের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।